ঢাকা বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
শিরোনাম :

তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ গড়বে : মোস্তাফা জব্বার

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আজকে যারা তরুণ, তারাই দেশের ভবিষ্যৎ গড়বে। আমরা ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ গড়ে দেয়ার পথ তৈরি করে দেবো।

দেশের ৮ বিভাগে ৪০ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উদ্যোক্তাদের খুঁজে বের করার অংশ হিসেবে এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হলো ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’।

আইসিটি ডিভিশনের আইডিয়া প্রজেক্ট ও ইয়াং বাংলার ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত এই আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় রাউন্ডের ওয়ার্কশপ শনিবার অনুষ্ঠিত হয়।আগামীকাল রবিাবর নেওয়া হবে উদ্যোক্তাদের পিচিং।দেশের অন্যান্য স্থান থেকে বিশ্ববিদ্যালয় রাউন্ডে অংশ নিতে এখনো আবেদন করতে পারবেন এই ঠিকানায়: startupbangladesh.gov.bd/student-to-startup/ অথবা https://bit.ly/2Fus2jd ঠিকানায় গিয়ে ফরমটি পূরণ করে আবেদন করতে পারেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা শিক্ষা অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনোভেশন ক্রিয়েটিভিটি এবং অন্ট্রাপ্রিনয়েরশিপ সেন্টার এর ভাইস চেয়ারম্যান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের সুপারনিউমারি অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. রশিদুল হাসান, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব, আইসিটি ডিভিশনের যুগ্মসচিব ও আইডিয়া প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মুজিবুল হক। সঞ্চালনায় ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনোভেশন ক্রিয়েটিভিটি এবং অন্ট্রাপ্রিনয়েরশিপ সেন্টার এর নির্বাহী পরিচালক এবং অর্গানাইজেশনাল স্ট্রাটেজি এবং লিডারলিপ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাশেদুর রহমান। এ ছাড়াও সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন ইয়াং বাংলার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসিডর তমা রশিদ ও সাগীর আহমেদ।

উদ্ভাবনী ভাবনা, উদ্যোগ ও স্টার্টআপকে ব্যবহার করার লক্ষ্যে ‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’ স্লোগানে আলোকিত হয়ে ৮ মার্চ কেন্দ্রীয় সমন্বয় কর্মশালার মাধ্যমে শুরু হয় ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআাপ: চেপ্টার ওয়ান’-এর যাত্রা।

দেশের ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে পরিচালিত হচ্ছে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ:চেপ্টার ওয়ান’ প্রতিযোগিতা। নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকেও অংশ নিতে পারবে শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাস পর্যায়ের এ প্রতিযোগিতায় প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাছাই করা হবে ৩টি দল। ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২০ দল নিয়ে সাভারে অনুষ্ঠিত হবে ‘জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প’। পরবর্তীতে দর্শক এবং বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ ৩০ স্টার্টআপ। সর্বশেষে জাতীয় পর্যায়ে সেরা ১০ উদ্ভাবনী ভাবনা বা স্টার্টআপ নির্বাচন করা হবে যাদের সব ধরণের সহায়তা প্রদান করবে ‘আইডিয়া’ প্রজেক্ট।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিভাগের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমি (আইডিয়া) প্রজেক্ট এবং দেশের তরুণদের জন্য সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলার যৌথ উদ্যোগে শুরু হওয়া এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার প্রথম অধ্যায় ৪০ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তী অধ্যায়ে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়েও এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ