ঢাকা বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
শিরোনাম :
«» ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সার্টিফিকেট জালিয়াতি মামলায় গ্রেফতার দুই «» ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের পর এবার ডাকবাংলায় ২৫ টাকার ঔষুধ ৬শ টাকায় বিক্রি, জরিমানা আদায় «» ঝিনাইদহের বৈডাঙ্গায় গুজবে কান না দেওয়ার জন্য ঝিনাইদহ থানা পুলিশের উদ্যোগে গণ-সচেতনামূলক সভা অনুষ্ঠিত «» ঝিনাইদহে পুকুর ডোবায় নেই পানি, পানির অভাবে পাট জাগ দিতে মহাবিপাকে পাটচাষীরা «» ঝিনাইদহে বর্ণাঢ্য আয়োজনে কসাসের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত «» ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামানের নির্দেশে ও শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমানের নেতৃত্বে গুজব বন্ধে শৈলকুপায় পুলিশের প্রচারাভিযান শুরু «» দিনাজপুরে পাবলিক সার্ভি দিবসে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত «» মাছের চাষে ভরপুর জেলা মোদের দিনাজপুর «» ফুলবাড়ীতে পাবলিক সার্ভিস দিবস পালনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» ফুলবাড়ীতে টিউশনির অর্থে শিক্ষার্থীকে পাঠ্যবই প্রদান

ঝালকাঠিতে ঝুকিপূ্র্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান, মাঠ, শৈচাগার ও ব্রীজের দাবি ছাত্রছাত্রীর

ইমাম বিমান : ঝালকাঠি জেলার সদর উপজেলায় ঝুকিপূর্ন  বিদ্যালয়ে চলছে পাঠদান। বিদ্যালয়ে খেলার মাঠ, শৈচাগার ও ব্রীজ নির্মানের দাবি জানায়েছে কমলমতি শিক্ষার্থীদের। সদর উপজেলাধীন কল্যানকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চলাকালীন সময় কমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছে।
২০১১/১২ অর্থ বছরে বিদ্যালয়ের জন্য নির্মিত নতুন ভবনটি নূন্যতম ১০ বছর যেতে না যেতেই বর্ষার সময় শ্রেনী কক্ষের ভিতরে ভবনের ছাদ থেকে পানি পড়ছে আর এ পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা হিসেবে শ্রেনী কক্ষে রাখা হয়েছে বালতি। আর বালতি রাখাতেই শেষ হয়নি দূর্ভোগ শ্রেনী কক্ষের দেয়ালের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে ফাটল, জানালার গ্রীল গুলোও প্রায় ধ্বংশ হবার পথে। বিদ্যালয়ের সম্মুখে খেলার মাঠের পরিবর্তে রয়েছে একটি ডোবা যেখানে অল্প বৃষ্টিতেই একজন মানুষের কোমর পর্যন্ত পানি আর অতি বৃষ্টিতে তো কথাই নেই,  বিদ্যালয়ের সম্মুখে খেলার মাঠের পরিবর্তে থাকা ডোবাতে প্রায় সময়ই ঘটে ছোটখাটো দূর্ঘটনা ঘটে কোন কোন সময় শিশুরা খেলার ছলে পানিতে পড়ে গিয়ে তাদের ব্যবহারিত পোশাক, বই, খাতা ভিজে নষ্টহয়ে যায়। স্কুলের খেলার মাঠ না থাকলেও কোমল মতি ছাত্রছাত্রীরা প্রাচীর ঘেরা বিদ্যালয়ের ছাদে উঠে খেলাধুলা করার সুযোগ থাকলে সেখানে রয়েছে আরোও ভয়ংঙ্কার ব্যবস্থা ছাদ থেকে ৩ ফুট উচুতে রয়েছে বৈদ্যুতিক তারের মেলা। যার ফলে বিদ্যালয় কতৃপক্ষকে দূর্ঘটনা এরাতে ছাদের দড়জা সবসময়ই বন্দ রাখতে হচ্ছে।
বিদ্যালয়টি সংযুক্ত দুটি ভবন নিয়ে হলেও কোমল মতি ছাত্রছাত্রীদের জন্য শিক্ষকদের ব্যবহারিত টয়লেট ছাড়া আরেকটি পরিতাক্ত টয়লেট রয়েছে যা বিদ্যালয় থেকে কিছু দূরে।
প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলের মধ্যে বিদ্যালয়টি থাকলেও তার পার্শবর্তী সড়কটি পিচঢালাই কৃত কিন্তু দূর্ভোগের বিষয় হলো প্রতন্ত গ্রাম অঞ্চল চর কল্যানকাঠি গ্রাম থেকে আসা শিক্ষার্থীদের পড়তে আরো বিড়ম্বনায়। চর কল্যানকাঠি- আলোকদিয়া গ্রামের সংযোগ সড়কটির যেমন রয়েছে বেহাল দশা ঠিক যেমন তারই ধারাবাহিকতায় বিদ্যালয় থেকে অল্পকিছু দূরে রয়েছে কাঠের তৈরী ভাঙ্গা সাকো যার উপর দিয়ে কোমলমতি শিশুদের চলাচলে পড়তে হচ্ছে ব্যাপক সমস্যায়।
এ বিষয় ২৭ বছর ধরে একই স্থানে কর্মরত প্রধান শিক্ষক আমিনুল হকের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, দীর্ঘ ২৭ বছর আমি এই বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।  কিন্তু বিদ্যালয়টির মাঠ ভরাটের জন্য কোথাও কোন বরাদ্ধ পাইনি। তবে অনেক সময় ইউনিয়ন, উপজেলা বা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের নিকট মাঠে বালু ভরাটের জন্য মৌখিক ভাবে বলেছি কিন্তু কোন কাজ হয়নি। অপর দিকে সীমানা প্রাচীর ঘেরা ভবনের ছাদটিও বৈদ্যুতিক খোলা তারের কারনে ব্যবহার করতে পারছি না। ঝালকাঠি পল্লীবিদ্যুৎ সমিতিতে তার সরানোর জন্য আবোদন করা হলোও আজ পর্যন্ত একইভাবে রয়েগেছে। কয়েক বছর থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্লিপ সহ কয়েকটি বরাদ্ধ পেলেও তা দিয়ে বিদ্যালয় ভবনের উন্নয়ন, শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা উপকরন, বিদ্যালয়ের বেঞ্চ আসবাবপত্র মেরামত করা হয়।
এ বিষয় বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সহ সভাপতিসাবেক ইউপি সদস্য মোজাম্মেল হক সেলিমের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, বহু দিন থেকে বিদ্যালয়ের সামনে খেলার মাঠ না থাকায় কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত। আমি এ বিষয় বিদ্যালয়ে বিবিধ সমস্যা সমাধানের লক্ষে ঝালকাঠি জেলার অভিভাবক জেলা প্রশাসক মহাদ্বয়ের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।
বিদ্যালয়ের ছাদের উপর খোলা তার দিয়ে বৈদ্যুতিক লাইন যাওয়া ও লাইনটি স্থানানন্তরের বিষয় ঝালকাঠি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার ছাদোকুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আবেদন করা হলে আমরা বিষয়টি দেখব বলে আশ্বাস দেন।
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ