ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
শিরোনাম :
«» চমেক হাসপাতালের আগুন এখন নিয়ন্ত্রনেঃ ক্ষয়ক্ষতি লক্ষাধিক টাকা «» পলাশবাড়ীতে অজ্ঞান পার্টির ৪ সদস্য গ্রেফতার,সিএনজি ও মোবাইল উদ্ধার «» গাইবান্ধা থেকে বন্যার পানি কমছে না «» পলাশবাড়ীর হাট-বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমুল্য বৃদ্ধি «» ডোমারে বর্যার কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চট্টগ্রামের পতেঙ্গা লালদিয়া চরের উচ্ছেদকৃত মানুষের আহাজারীতে কাঁপছে আকাশ-বাতাস «» চট্টগ্রামের অক্সিজেনে চসিক’র অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান «» র‌্যাব-৮ মাদারীপুর এর অভিযানে ১২ হাজার পাঁচশত পিস ইয়াবা উদ্ধার এবং ট্রাকসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক  «» চিরিরবন্দরে স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার অভিযোগ ঘাতক স্বামী আটক «» রাজবাড়ীতে জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস পালন -সবাই মিলে একসাথে একই উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করবো, ডিসি —  দিলসাদ বেগম

নারী শিক্ষা বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে বেলতলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : চিরিরবন্দর উপজেলায় নারীর শিক্ষা বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে বেলতলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। দক্ষ পরিচালনা কমিটি, যুগোপযোগী শিক্ষাদান, নিয়মিত প্রাত্যহিক সমাবেশ, সাংস্কৃতিক চর্চা, গার্লস্ গাইড প্রশিক্ষণ, খেলাধুলাসহ যাবতীয় সহশিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির সুনাম দিনদিন বৃদ্ধি এবং বিদ্যালয়ের সার্বিক মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। পরিচালনা পর্ষদ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিদ্যালয়টি পরিনত হয়েছে একটি আর্দশ বিদ্যাপীঠে।

উপজেলার বেলতলী বাজার নামক স্থানে ১.৫২ একর নিজস্ব জমির উপর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বেলতলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়টি। ১৯৯৮ ইং সালে যথাযথ ও দক্ষ মানুষ গড়ার আর্দশে উজ্জীবিত হয়ে স্থানীয় শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি ও জমিদাতা অবঃ প্রধান শিক্ষক আব্দুল বারী সরকারের সার্বিক সহয়তায় বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার অদম্য ইচ্ছাশক্তি নিয়ে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক মোরশেদ-উল-আলম। ক্রমান্বয়ে প্রাথমিক অনুমতি লাভ করে মাধ্যমিক পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করে চলেছে। বিদ্যালয়টির পাশের হার ২০১৯ সালে ৯৫%। বর্তমানে বিদ্যালয়ের ছাত্রী সংখ্যা ৩৮৩ জন। শিক্ষক কর্মচারীর সংখ্যা ১৪জন।

কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয় বিদ্যালয়টি মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষক কর্মচারীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্ত করা হলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান আরো উন্নতি লাভ করবে বলে জানিয়েছেন এলাকার সচেতন শিক্ষানুরাগী বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিরা। প্রধান শিক্ষক মোরশেদ উল আলম বলেন, ২০০৫ সাল হতে এসএসসি পরিক্ষায় অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করে ভাল ফলাফল করছে। মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকগণ দীর্ঘদিন যাবত বিনাবেতনে চাকুরী করে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে। অভিভাবক বাবুল হোসেন জানান, গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মেয়েদের শিক্ষিত করতে, কাজের মেয়ে না হতে প্রধান শিক্ষক মজুর শ্রেণী ও রিক্সা- ভ্যান চালকদের মেয়েদের বিনামূল্যে পড়ার সুযোগ করে দেন। তাদের সেশন চার্জ, ভর্তি ফিসহ পরীক্ষার ফিস নেয়া হয় না। চিরিরবন্দর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মনজুরুল হক জানান, বিদ্যালয়টির পরিবেশ অত্যন্ত ভাল এবং প্রয়োজনীয় ছাত্রী সংখ্যাও রয়েছে। ৪র্থ তলা ভিতবিশিষ্ট একতলা একডেমিক ভবনের কাজ নির্মাণাধীন রয়েছে। তবে মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিও ভূক্ত হলে প্রতিষ্ঠানটির ফলাফল ও ছাত্রীসংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ