ঢাকা বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
শিরোনাম :
«» ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সার্টিফিকেট জালিয়াতি মামলায় গ্রেফতার দুই «» ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের পর এবার ডাকবাংলায় ২৫ টাকার ঔষুধ ৬শ টাকায় বিক্রি, জরিমানা আদায় «» ঝিনাইদহের বৈডাঙ্গায় গুজবে কান না দেওয়ার জন্য ঝিনাইদহ থানা পুলিশের উদ্যোগে গণ-সচেতনামূলক সভা অনুষ্ঠিত «» ঝিনাইদহে পুকুর ডোবায় নেই পানি, পানির অভাবে পাট জাগ দিতে মহাবিপাকে পাটচাষীরা «» ঝিনাইদহে বর্ণাঢ্য আয়োজনে কসাসের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত «» ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামানের নির্দেশে ও শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমানের নেতৃত্বে গুজব বন্ধে শৈলকুপায় পুলিশের প্রচারাভিযান শুরু «» দিনাজপুরে পাবলিক সার্ভি দিবসে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত «» মাছের চাষে ভরপুর জেলা মোদের দিনাজপুর «» ফুলবাড়ীতে পাবলিক সার্ভিস দিবস পালনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» ফুলবাড়ীতে টিউশনির অর্থে শিক্ষার্থীকে পাঠ্যবই প্রদান

রাজবাড়ী আলাদিপুরে গভীর রাতে ছাত্রীকে যৌন-হয়রানির অভিযোগ ৬০ বছরের তালেবের বিরুদ্বে  

রাজবাড়ী অফিস : ‘ দুই বছর যাবত আমাকে কু–প্রস্তাব সহ , স্কুলে যাওয়া আসার সময় চিঠি দিতো, চিঠি হাতে না নিলে আমাকে ক্ষতি করবে অথবা আমার ভাইকে খুন করবে। ভাই অটো চালক রাতে বাসায় আসে । ভয়ে চিঠি নিতাম । ৮ম শ্রেনীতে পড়া অবস্থা থেকে সে আমাকে কু–প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো । এ পর্যন্ত প্রায় একশত চিঠি দিছে আমাকে আর প্রতি চিঠিতে লেখা থাকতো রাত ১২ টার সময় দেখা করবে । আমি আমার পরিবার কে জানাই এবং স্থানীয় মেম্বার চেয়ারম্যান দের কাছে বিচার চাই । কিন্তু কেউ আমাদের সাহায্য করেনি । আমরা গরীব মানুষ তাই প্রভাব খাটিয়ে আমাকে দিনের পর দিন বছরের পর বছর বয়স্ক লোকটা আমাকে জ্বালাতন করেগেছে , নিরবে সহ্য করে গেছি । লোক লজ্জার ভয়ে কিছুই করতে পারিনি আমি সহ আমার ভাই নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি।

—— এভাবেই কান্না জড়িত কন্ঠে প্রতিবেক কে বর্ণনা  করছিলো এস এস সি পরিক্ষা দেয়া  ছাত্রী ।

letter/ তালেবের দেওয়া  চিঠির ছবি

রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউপি’র আহালাদিপুর গ্রামের সাফাজ উদ্দিনের ছেলে তালেব (৬০) নামে ঐ ব্যাক্তির নামে এভাবেই অভিযোগ করে ছাত্রী । এ বিষয়ে ছাত্রী’র মা জানান ,দুই বছর যাবত আমার মেয়েকে উত্যক্ত করে যাচ্ছে আমার বাড়ীর পাশে তালেব, মান সম্মানের ভয়ে এ বিষয়ে প্রথমে কাউকে কিছুই জানাই নি । পরে সহ্য করতে না পেরে স্থানীয় চেয়ারম্যান এর কাছে গিয়েছিলাম তেমন কোন সমাধান পাইনি ।

আমরা গরিব মানুষ মেয়েটাকে লেখাপড়া করিয়েছি । এ এস সি পাশ করার পর মেয়েকে পড়াশোনা করাতে চেয়েছিলাম, কিন্তু তা আর হবে না মনে হচ্ছে । তালেবের স্ত্রী রয়েছে । সে তার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছে মেয়ের ঘড়ে বাচ্চা হয়েছে। তবুও সে প্রতিনিয়ত আমার মেয়েকে উত্যক্ত করে আসছে । মাঝে মাঝে রাতে  আমার ঘড়ের চালে ঢিল ছোড়ে ।

মেয়ের বাবা জানান , আমি অনেকদিন ধরেই মেয়ের কাছ থেকে এ ঘটনা শুনছি , স্থানীয়দের কাছে বিচারের দাবী জানিয়েছি । তেমন কোন সমাধান পাইনি । কিছুদিন আগে আমার ছেলেকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে । গত রাতে প্রায় এক টার দিকে আমার মেয়েকে লম্বা পাট কাঠি দিয়ে আমার মেয়েকে বাইরে থেকে খোচা দিতে থাকে পরে শব্দ পেয়ে আমি ঊঠে গিয়ে তাকে জড়িয়ে ঝাপটে ধরি লোকজন কে ডাকি এ সময় সে আমাকে ঝাকি দিয়ে ছুটে চলে যায় ।

এ বিষয়ে স্থানীয় বয়স্ক বাসীন্দা  সিদ্দিক শেখ জানান , অনেক দিন ধরে এ ব্যাপারে মেয়ের বাবা আমার কাছে বলে আসছিলো কিন্তু আমি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও লোকজনদের বলেছি সমাধানের জন্য , কিন্তু তালেব স্থানীয় চেয়ারম্যানের চাচাতো ভাই ও প্রভাবশালী হওয়ায় এ বিষয় নিয়ে তেমন সমাধান করা সম্ভব হয়নি । তবে এ বিষয়ে সুষ্ঠ সমধান দরকার ।

মেয়ের ভাই আবুল জানান , আমার বোন প্রায় আমার কাছে তালেবের দেওয়া চিঠি এনে আমার হাতে দিতো । চিঠি নেওয়ায় আমি রাগ করতাম আমার বোন বলতো চিঠি না নিলে তোমার ক্ষতি করবে বলে আমি চিঠি নেই। তার ভাই আরো বলেন , এর আগে আমাকে সে মেরেছে এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসা করার জন্য । এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান বলেছে আগামিকাল বসবে সমাধানের জন্য ।

তবে ঐ দিন দুপুরে স্থানীয় চেয়ারম্যান মোঃ শওকত আলী’র  সাথে জানতে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি এবং পরে মোবাইলে ফোন করলেও তিনি রিসিব করেন নি বলে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি ।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার  জানান সদর থানায়  একটি মামলা দায়ের  করা হয়েছে ,  আমরা দ্রুতই ঘটনার সাথে জড়িত তালেবের বিরুদ্বে  ব্যাবস্থা নিবো।’ মামলা নাম্বার -৪/৩৬১ ৩ জুলাই ২০১৯ ।

 

 

 

    এই নিউজের সমস্ত তথ্য ভিডিও রেকর্ডিং করা রয়েছে ।

প্রতিবেদন টি’র  ফলোআপ চলবে । 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ