ঢাকা বুধবার, ২২শে মে, ২০১৯ ইং, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
ADD
শিরোনাম :

কুলাউড়ায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলায় জড়ানোর পাঁয়তারার ঘটনায় জরুরী সভা

মৌলভীবাজার অফিস : সাম্প্রতিক সময়ে কুলাউড়ায় বিভিন্ন দপ্তরের অনিয়ম ও দূর্ণীতির বিষয়ে সংবাদ পরিবেশণাকে কেন্দ্র করে সাংবাদিককে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মামলায় জড়ানোর পাঁয়তারার ঘটনায় এক জরুরী সভায় মিলিত হয় কুলাউড়ায় কর্মরত সাংবাদিকরা।

রবিবার (১২ মে) সন্ধ্যা ৭টার দিকে কুলাউড়ার সংলাপ কার্যালয়ে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উক্ত বিষয়ে তদন্তের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

গত ৫ মে কুলাউড়ার কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদে গ্রাম আদালতে একটি চুরির মামলার নিষ্পত্তি হয়। সেইদিন রাতে অভিযুক্ত ব্যক্তি ইছরাঈল আলী (২৮) বিষপান করে। পরেরদিন সকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। সেই ঘটনায় ইসরাঈলের পিতা আছাদ আলী গত ৬ মে ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সালামসহ তিনজনকে বিবাদী করে আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা দায়ের করেন। এবং মামলা নথিভুক্ত করা হয়। পরের দিন ৭ মে একই ঘটনায় নতুন আরও আসামী অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এতে নতুন করে পূর্বপশ্চিম বিডি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও দৈনিক বাংলাদেশ জার্নালের মৌলভীবাজারে জেলা প্রতিনিধি, কুলাউড়া সংলাপ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক এম এ কাইয়ুমকে জড়ানো হয়। এরপর থেকেই কুলাউড়ার সাংবাদিক অঙ্গণে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দা ও প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে কুলাউড়ার সর্বস্তরের মানুষের মাঝে।

জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে কুলাউড়ার সাংবাদিকরা বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশণ করায় সাংবাদিকদের উপর ক্ষুব্ধ দূর্ণীতির হোতারা। সাংবাদিকদের নিপীড়নের উদ্দেশ্যে তারা নানাবিদ ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এরই অংশ হিসেবে সাংবাদিক এম এ কাইয়ুমকে আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলায় জড়িত করা হয়। বিষয় চাউরর হলে সর্বত্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠে। সাংবাদিকরা জরুরী সভার ঘোষণা দেয়। এতে প্রশাসন পিছু হটে।

এদিকে এই ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সাংবাদিকরা একটি জরুরী সভায় মিলিত হয়েছে। এতে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। সভায় সাংবাদিক কাইয়ুমকে মামলায় জড়ানোর বিষয়ে তদন্তের জন্য একটি পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা আগামী তিনদিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর পরবর্তী কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে বলে সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

কমিটির সদস্যরা হলেন, আজিজুল ইসলাম (যুগান্তর), মোক্তাদির হোসেন (দিনকাল), নাজমুল ইসলাম (ভোরের ডাক), সাইদুল ইসলাম সিপন (সময়ের আলো ও উত্তরপূর্ব) ও শাকির আহমদ (বাংলাদেশ টুডে ও সিলেটভিউ)।

কুলাউড়া প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ইত্তেফাক প্রতিনিধি সুশীল সেনগুপ্তের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক কুলাউড়ার সংলাপের সম্পাদক অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ, প্রেসক্লাব কুলাউড়ার সভাপতি ও যুগান্তর প্রতিনিধি আজিজুল ইসলাম, সাপ্তাহিক সীমান্তের ডাকের সম্পাদক ও জনকণ্ঠ প্রতিনিধি সঞ্জয় দেবনাথ, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুলাউড়া ইউনিটের সভাপতি ও দিনকাল প্রতিনিধি মোক্তাদির হোসেন, শহিদুল ইসলাম তনয় (সাহিত্য সম্পাদক, মানব ঠিকানা), আলাউদ্দিন কবির (মানব জমিন), মোহাম্মদ আলী চৌধুরী তরিক (সম্পাদক, সাপ্তাহিক আমার কুলাউড়া), সাইদুল হাসান সিপন (সময়ের আলো), শরীফ আহমদ (সবুজ সিলেট), জসিম চৌধুরী (মানবকন্ঠ), এস আলম সুমন (সিলেটটুডে), শাকির আহমদ (বাংলাদেশ টুডে ও যুগভেরী), আব্দুল আহাদ (যায়যায়দিন ও শুভ প্রতিদিন), একেএম জাবের (বিডিমেইল ও প্রিয় কুলাউড়া), এইচ ডি রুবেল (পাঁতাকুড়ি), নাজমুল বারী সোহেল (প্রথম ভোর), এনামুল আলম (গনজাগরণ), সুমন আহমদ (সংলাপ), প্রভাষক আহসান রাব্বী মিরাজ, সাব্বির হোসেন চৌধুরী (সংলাপ), ইউছুফ আহমদ ইমন (সংলাপ), আমিনুল ইসলাম দিদার (সংলাপ), শাকিল সিদ্দিকী খালেন (সংলাপ), মইনুর রহমান শাহান (ঢাকা ক্রাইম), সামাদ আলম কাওছার (সময়ের সাথে) প্রমুখ। 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ