ঢাকা রবিবার, ২৬শে মে, ২০১৯ ইং, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
ADD
শিরোনাম :
«» জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী পালিত «» বিএনপি নেতা নাসির ক্যান্সারে আক্রান্ত আর্থিক সহায়তা কামনা «» ঝিনাইদহে আম ও তরমুজে আগুন, নিয়ন্ত্রহীন বাজারে নেই কোনো দামাদামি «» গভীর রাতে গোয়াল ঘর থেকে ৫টি গরু চুরি «» ঝিনাইদহের ডাকবাংলা এলাকা থেকে ৭০ লিটার বাংলা মদসহ আটক ১ «» আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নারীসহ আহত ২০ «» মহেশপুরে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন এএসআই আনিচ «» জোড়াবাড়ীতে পূর্ব শত্রুতার জেরধরে মহিলাসহ ৪জনকে পিটিয়ে জখম «» চুয়াডাঙ্গায় দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি প্রদান «»   নফল ইবাদতগুলো আমল করার চেষ্টা করুন : (মাগফিরাতের দশম দিন)

কোথায় আজ মানবতা?

 হে মানব কোথায় আজ হারিয়ে গেলো মানবতা?কোথায় আজ মানূষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা?কোথায় আজ ছোট ছোট ছেলে মেয়ে ও ছাত্র/ছাত্রীদের প্রতি শিক্ষকের শু-দৃষ্ট্রি?কে দিবেন এই সকল প্রশ্নের উত্তর?আমরা প্রতিদিন যখন জনপ্রিয় অনলাইন ভিত্তিক ফেজবুক ও বিভিন্ন পত্র/পত্রিকায় চোখ রাখি তখনই দেখতে পাই বিভিন্ন ঘটনা যে ঘটনা পড়ে আমরা সকলেই আতঙ্ক হয়ে পরি।সন্তানেরা তার বাবা ও মায়েদের কাছে নিরাপদ নয়,শিক্ষকের কাছে তার ছাত্র-ছাত্রি নিরাপদ নয়,আমরা এমনই একটা সমাজে বসবাস করি যে সমাজের মানুষের আজ কোনো মানবতা নেই।তারপরেও আমরা দাবি করি আমরা সৃষ্টির সেরাজীব,যদি সৃষ্ট্রির সেরাজীব হয়ে থাকি,তাহলে আজ আমাদের ব্যবহার কেন পশুর চাইতেও খারাপ?হে শিক্ষক তুমি আলেম নও,তুমি আলেম হয়ে কলঙ্কিত করেছো পুরো আলেম সমাজকে।কেননা একজন ছাত্রী যখন নিরাপত্তা নিয়ে যেতে পারনা একজন শিক্ষক কিংবা আলমের কাছে তাহলে আমরা কোথায় থাকবো নিরাপদ নিয়ে?

এই অবস্থার পরিবর্তন কবে হবে ?

চারিদিকে আজ শুনি মজলুমের আত্মধ্বনি, আহাজারি আর সেই আত্মনাদ শুনে হায়নাদের উল্লাস,অট্ট হাসি,সে হাসিতে যেন প্রতিধ্বনিত হচ্ছে আকাশে বাতাসে,হৃদয়ের কান্না যেন ছড়িয়ে পড়ছে দিক থেকে দিগন্তে,আজ আর কেউ শুনতে পায় না সেই আহাজারি।সবাই যেন নিরব দর্শকের মত দাঁড়িয়ে দেখছে আজ এই কান্নার আওয়াজ ধ্বনিত হচ্ছে মানবতার আকাশে,আহ! আফসোস! আর দেখি লুণ্ঠিত হচ্ছে মানবতা, আজ যেন মানুষের কোন মূল্য নেই এই ধরায়, অথচ মানুষই শ্রেষ্ঠ,স্রষ্ঠার এক মহাদান।আমি দেখেছি মানবতা,দেখেছি মনুষ্যত্ব,শুনেছি জীবনের জয়গান,কোথায় হারিয়ে গেলো আজ স্রষ্টার শ্রেষ্ঠ সেই মহাদান?

সৃষ্টির মাঝে করুণাময় আল্লাহ তায়ালা মানুষকে দামী করে বানিয়ে পাঠিয়েছে তাদের মর্যাদা দিয়েছেন সব সৃষ্টি কুলের উপরে।আর সমস্ত সৃষ্টিকুলকে যেন মানুসের আজ্ঞাবহ করে দিয়েছে।এই যদি হয় কথিত মানবতা,তাহলে মানবতার সর্বশেষ আশ্রয়টুকু যেন জীবন্ত কবরে পরিণত হয়েছে।এই ভাবে আর কত শত নুসরাত জাহান রাফিকে জীবন দিতে হবে?এভাবেই ঝরে পড়ে কত শত জীবন সহজেই!!!

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার কাছে আমার ও এই যুব সমাজের সকলের একটাই আবেদন ধর্ষনের শাস্তি ফাঁসি হোক এই আইন অতিবিলম্বে কার্যকর করুন। যাতে আর কোনো কুলাঙ্গার সন্তানেরা নুসরাতের মতো কোনো বোনকে এইভাবে নির্যাতন করতে না পারে।আল্লাহ যেনো নুসরাত এর পরিবারকে হেফাজত করুন।আর নুসরাতের সকল গুনাহ ক্ষমা করে দেন এটাই মহান আল্লাহর কাছে প্রত্যাসা।

নবীন লেখক-
ও বর্তমান প্রজন্মের একজন সমালোচক –
(মোঃ হাসানাত খান)

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ