ঢাকা রবিবার, ২৬শে মে, ২০১৯ ইং, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
basic-bank
ADD
শিরোনাম :
«» জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী পালিত «» বিএনপি নেতা নাসির ক্যান্সারে আক্রান্ত আর্থিক সহায়তা কামনা «» ঝিনাইদহে আম ও তরমুজে আগুন, নিয়ন্ত্রহীন বাজারে নেই কোনো দামাদামি «» গভীর রাতে গোয়াল ঘর থেকে ৫টি গরু চুরি «» ঝিনাইদহের ডাকবাংলা এলাকা থেকে ৭০ লিটার বাংলা মদসহ আটক ১ «» আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নারীসহ আহত ২০ «» মহেশপুরে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন এএসআই আনিচ «» জোড়াবাড়ীতে পূর্ব শত্রুতার জেরধরে মহিলাসহ ৪জনকে পিটিয়ে জখম «» চুয়াডাঙ্গায় দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি প্রদান «»   নফল ইবাদতগুলো আমল করার চেষ্টা করুন : (মাগফিরাতের দশম দিন)

তেজপাতা পোড়ান আর দেখুন এর অবিশ্বাস্য ফলাফল

শতাব্দী প্রাচীন ধরে তেজপাতা রোগ নিরাময়কারী ও স্বাস্থ্যকর ভেষজ পাতা হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। আয়ুর্বেদ জানাচ্ছে, কেবল তেজপাতা খাওয়াতেই নয়, পোড়ালেও কিন্তু অনেক উপকার পাওয়া যায়। ১০ মিনিট তেজপাতা পোড়ান! ফলাফল হবে অবিশ্বাস্য, চোখের সামনেই জাদু। একটি হেলথ ওয়েবসাইট ‘হেলদি ফুড ট্রিকস’-এ সম্প্রতি বিশদে প্রকাশিত হয়েছে তেজপাতা বিষয়ক তথ্য।

সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, একটি ছাইদানিতে কয়েকটি তেজপাতা নিয়ে ১০ মিনিট ধরে পোড়ালের ফলে এতে পাতা যেমন পুড়বে, তেমনই পুড়বে এর মধ্যে থাকা অপরিহার্য তৈল উপাদানও। তেজপাতা পোড়ালে ধীরে ধীরে ঘরে সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এই ভেষজ গন্ধ মনকে সতেজ করে দেবে। এটি মন-শরীরকে যেমন প্রশমিত করতে সাহায্য করে, তেমনই এতে মানসিক চাপ ও উদ্বেগও কমবে।

ইউরোপীয় বিভিন্ন শাস্ত্রে বলা হয়েছে, প্রাচীন গ্রিক ও রোমানরা তেজপাতাকে পবিত্র ওষুধ বলত। বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে তেজপাতাকে অপরিহার্য বলে ধরা হয়। উপমহাদেশে এই পাতাকে মসলা হিসেবে ব্যবহার করেন। রান্নার স্বাদ বাড়াতে ও সুগন্ধ আনতে এর ব্যবহার করা হয়।বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, তেজপাতার মধ্যে রয়েছে পিনেনে ও সাইনিয়ল নামে দুটি উপাদান। রয়েছে তৈল উপাদান উপাদান। এর মধ্যে রয়েছে সাইকো-অ্যাকটিভ পদার্থ।পাশাপাশি, এতে রয়েছে জীবানুনাশক, ডিওরেটিক, সিডেটিভ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান। এগুলো স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এটি মনমেজাজকে ভাল করে, সঙ্গে তেজপাতা পাকস্থলীর ফ্লু নিরাময়েও সাহায্য করে। তেজপাতার এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করলে মাথাব্যথা কমে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ